প্রতিনিধি, আমতলী (বরগুনা), ৪ জুলাই ২০১৭

গত রোববার রাতে বরগুনার তালতলী উপজেলার কড়াইবাড়িয়া ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের সদস্য মো. জলিল রাঢ়ীকে (৪৮) পাওনা টাকা দেয়ার নামে ডেকে নিয়ে পায়ের রগ কেটে ও নির্দয়ভাবে কুপিয়েছে সন্ত্রাসীরা। জানা গেছে, উপজেলার কড়াইবাড়িয়া ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডে গত ১৬ এপ্রিল ইউপি নির্বাচনে মো. জলিল রাঢ়ী এক ভোটের ব্যবধানে প্রতিপক্ষ মো. বাচ্চু হাওলাদারকে পরাজিত করে নির্বাচিত হয়। মো. জলিল রাঢ়ী নিউপাড়া বাজারে রট, বালু ও রড- সিমেন্টের ব্যবসা রয়েছে। ওই প্রতিষ্ঠান থেকে প্রতিপক্ষ বাচ্চু হাওলাদারে সহকর্মী দুলাল হাওলাদার রড, সিমেন্ট ও বালু ক্রয় করে। তার কাছে ৮০ হাজার টাকা বাকি থেকে যায়। ওই পাওনা টাকা বহুবার চাওয়ার পরেও দেয়নি। রবিবার সন্ধ্যায় জামাল মোল্লা তাকে (ইউপি সদস্য) পাওনা টাকা নেয়ার জন্য তার বাড়িতে আসার জন্য বলে। তার কথা মতো সন্ধ্যা ৭টার দিকে মোটরসাইকেলে করে বাসার সামনে পেঁৗছে জামাল মোল্লাকে ফোন দিলে তিনি তালতলী গ্রামীণ ব্যাংকের সামনে আসতে বলে। আমি সরল বিশ্বাসে ওই খানে পেঁৗছলে জামাল মোল্লা, দুলাল হাওলাদার, বাচ্চু হাওলাদারসহ ৭/৮ জন সন্ত্রাসী চেপে ধরে বটতলা নির্জন স্থানে নিয়ে তার বাম পায়ের গোড়ালীর রগ কেটে এবং নির্দয়ভাবে কুপিয়ে পুকুরে ফেলে দিয়ে সন্ত্রাসীরা চলে যায়। এরপরে তার চিৎকারে স্থানীয় লোকজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে বরিশাল সেবাচিম হাসপাতালে পাঠানো হয়।

লিংক